আজ || সোমবার, ২০ মে ২০২৪
শিরোনাম :
  রবীন্দ্র সৃজনকলা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ডিজাইনকৃত পোশাক নিয়ে ফ্যাশন প্রদ‍‍র্শনী       গোপালপুরে দারোগার মাথা ফাটানোর ঘটনায় ১৬ জনকে জেলহাজতে প্রেরণ       গোপালপুরে দারোগার মাথা ফাটিয়েছে সন্ত্রাসীরা; গ্রেফতার ১০       গোপালপুরে প্রধানমন্ত্রীর ফেয়ার প্রাইজের চাল কালোবাজারে বিক্রির অভিযোগ       গোপালপুরে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মোমেনের পদত্যাগ       উত্তর টাঙ্গাইল নূরানী মাদরাসার বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান       গোপালপুরে জাতীয় দুর্যোগ প্রস্তুতি দিবস উদযাপন       গোপালপুরে নানা আয়োজনে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত       গোপালপুরে পৃথক সড়ক দূর্ঘটনায় শিশু ও নারী নিহত       গোপালপুরে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে নগদ অর্থ প্রদান    
 


চাঁদা চেয়ে গণপিটুনি খেলেন দুই র‌্যাব সদস্য

চাঁদার দাবিতে এক কৃষককে মারধরের অভিযোগে নারায়ণগঞ্জে দুই র‌্যাব সদস্যকে পিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে জনতা। তবে থানা পুলিশ কোনো মামলা ছাড়াই অভিযুক্ত দুই র‌্যাব সদস্যকে ছেড়ে দিয়েছে। গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় সোনারগাঁ উপজেলার হোসেনপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত দুই র‌্যাব সদস্য হলেন র‌্যাব-১১-এর এএসআই বেলায়েত হোসেন (আইডি কার্ড নম্বর ৩৩৪০৬২) ও সৈনিক এরশাদ (আইডি কার্ড নম্বর ৩৪১০৩৪)।
ক্ষুব্ধ জনতা র‌্যাবের ব্যবহৃত দুটি মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ ছাড়া কৃষকের ওপর হামলার প্রতিবাদে হোসেনপুর-মোগরাপাড়া সড়ক অবরোধ এবং বিক্ষোভ মিছিল করে অভিযুক্ত র‌্যাব সদস্যদের বিচার দাবি করে এলাকাবাসী। খবর পেয়ে পুলিশ ও র‌্যাব গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এলাকাবাসী জানায়, জমি নিয়ে স্থানীয় একজনের সঙ্গে বিরোধের মীমাংসা করিয়ে দেওয়ার কথা বলে চার র‌্যাব সদস্য কৃষক মুকুল সরকারের কাছে দুই লাখ টাকা দাবি করেন। এতে রাজি না হওয়ায় র‌্যাব সদস্যরা তাঁর ওপর হামলা চালান। এলাকাবাসী এগিয়ে এলে দুই র‌্যাব সদস্য পালিয়ে যান। অন্য দুজন এলাকাবাসীর হাতে ধরা পড়েন। তাঁদের পুলিশে দেওয়া হলেও থানা পুলিশ কোনো মামলা ছাড়াই ওই দুই সদস্যকে র‌্যাবের জিম্মায় ছেড়ে দেয়।
ঘটনার বর্ণনা দিয়ে চেলারচর এলাকার কৃষক মুকুল সরকার কালের কণ্ঠকে বলেন, কিছুদিন আগে তিনি হোসেনপুর এলাকায় সিরাজুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তির কাছ থেকে বায়না সূত্রে ১৫ শতাংশ জমি কেনেন। ১৫ দিন আগে ওই জমিতে মাটি ফেলতে গেলে রিয়াজুল নামের এক ব্যক্তি বাধা দেয়। এ নিয়ে উভয় পক্ষই সোনারগাঁ থানায় অভিযোগ করে। গত ১৮ জানুয়ারি থানার এসআই সোহেল দুই পক্ষকে মধ্যস্থতার জন্য থানায় ডাকেন। মুকুল কাগজপত্র নিয়ে থানায় গেলেও রিয়াজুল যায়নি। এরপর গতকাল বিকেল ৫টার দিকে রিয়াজুল চার র‌্যাব সদস্যকে নিয়ে হোসেনপুর এলাকায় যায়। তাঁরা মুকুলকে ডেকে মধ্যস্থতার জন্য চাপ দেন।
মুকুল অভিযোগ করেন, র‌্যাব সদস্যরা ঘটনাটি মীমাংসার জন্য তাঁর কাছে দুই লাখ টাকা দাবি করেন। এতে রাজি না হলে র‌্যাব সদস্যরা তাঁকে মারধর শুরু করেন। তিনি চিৎকার করলে স্থানীয়রা এগিয়ে আসে। তখন দুটি মোটরসাইকেল ফেলে দুই র‌্যাব সদস্য ও রিয়াজুল পালিয়ে যায়। তবে জনতার হাতে ধরা পড়েন দুজন। পরে স্থানীয়রা জনকল্যাণ সমিতিতে তাঁদের আটকে রেখে পুলিশে খবর দেয়।
থানা থেকে অভিযুক্ত দুই র‌্যাব সদস্যকে ছেড়ে দেওয়ার ব্যাপারে সোনারগাঁ থানার ওসি আতিকুর রহমান খান বলেন, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলার বাদী না পাওয়ায় তাঁদের র‌্যাবের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।
র‌্যাব-১১-এর অধিনায়ক এ বি এম নওরোজ এহসান কালের কণ্ঠকে বলেন, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য করুন -


Top
error: Content is protected !!