আজ || বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম :
  গোপালপুরে কোটা বিরোধীদের বিপক্ষে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতিবাদ       গোপালপুর প্রেসক্লাবে মেধাবী শিক্ষার্থীদের সাথে মতবিনিময়       গোপালপুরে শতাধিক নিষিদ্ধ জাল পুড়িয়ে ধ্বংস       গোপালপুরে বর্নাত্যদের জন্য ফ্রি মেডিক্যাল ক্যাম্প       গোপালপুরে বন্যায় পানীয় জলের সংকট, তবে ক্ষতিগ্রস্তরা পাচ্ছে পর্যাপ্ত ত্রাণ       গোপালপুরে ভূয়া নামজারি ও জাল খতিয়ান তৈরি চক্রের দুই সদস্য আটক       টাঙ্গাইল জেলা সমিতি ঢাকা’র নবনির্বাচিত সভাপতি ইব্রাহীম, সম্পাদক হিরণ       গোপালপুরে বৃত্তি প্রদান ও পুরস্কার বিতরণ       গোপালপুরে বৃক্ষরোপন কর্মসূচী পালন       গোপালপুরে ভূমি সেবা সপ্তাহে কুইজ প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ    
 


ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের মধ্যদিয়ে সারাদেশে ১৮ দলের হরতাল পালিত

জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদে প্রধান বিরোধী দল বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮দলীয় জোটের ডাকে সারাদেশে সকাল-সন্ধা হরতালবিক্ষিপ্ত ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের মধ্যদিয়ে পালিত হয়েছে। সকাল থেকেই রাজধানীর কয়েকটি জায়গায় পুলিশের সঙ্গে হরতাল সমর্থনকারীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, সংঘর্ষ ও ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। সকালে মিরপুরে একটি বাসে আগুন দেয়া হয়।

বিশৃঙ্খলা এড়াতে আগে থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান নেয় পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যরা। হরতালের প্রথম প্রহরে রাজধানীর মিরপুরে বাসে আগুন দেয়া হয়। পান্থপথে হরতাল সমর্থকদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া এবং সংঘর্ষ হয়। এ সময় ককটেল বিস্ফোরণ ঘটনা ঘটে। তেজগাঁওয়ে কলেজের সামনে হরতাল সমর্থনকারী মিছিলে পুলিশ রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে।

সকাল পৌনে ৬ দিকে পিকেটাররা শাহবাগ মোড়ে মিরপুর-সদরঘাটগামী ইউনাইটেড পরিবহনের একটি গাড়ি ভাংচুর করে পিকেটাররা। একই সময় মিরপুর ৬ নম্বর প্রশিকা ভবনের সামনে একটি মিনিবাসে আগুন দেয় কেবা কারা।

সকাল সোয়া ৭টার দিকে পান্থপথে হরতাল সমর্থনকারীর মিছিল বের করার চেষ্টা করলে পুলিশ বাধা দেয়। এতে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় বেশ কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।

সকাল সাড়ে ৭টার দিকে তেজগাঁও কলেজের সামনে হরতাল সমর্থনকারী পিকেটাররা মিছিল বের করতে চাইলে পুলিশ লাঠিচার্জ ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। তেজগাঁও রেললাইনের কাছে একই সময়ে জামায়াত-শিবির টায়ার জ্বালিয়ে অবস্থান নেয়।

সকাল ৭টার দিকে বাড্ডা সুবাস্তু টাওয়ারের সামনে শিবির একটি ঝটিকা মিছিল বের করে। এ সময় ৭/৮টি গাড়ি ভাঙচুর করে।

সকাল সাড়ে ৭টার দিকে যাত্রাবাড়িতে মাছের বাজার এলাকায় জামায়াত-শিবির মিছিল বের করে রাজপথ দখল নিয়ে নেয়। এ সময় তারা ৫/৬টি গাড়ি ভাংচুর করে। পুলিশ তাদের লাঠিচার্জ ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা করলে তারা পুলিশের ওপর চড়াও হয়।

সকাল ৭টার দিকে দক্ষিণ যাত্রাবাড়ীর ধোলাইপাড় এলাকায় পুলিশ ও হরতালের সমর্থনে পিকেটারদের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। পিকেটারদের হামলার শিকার হয়ে পুলিশ ব্যাপক লাঠিচার্জ ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে।

সকাল সাড়ে ৭টার দিকে স্থানীয় ৮৪নং ওয়ার্ড যুবলীগের অফিসের সামনে কেবা কারা পরপর দুটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে পালিয়ে যায়।

বাসাবো বালুর মাঠ এলাকায় রাস্তা অবরোধ করে টায়ার জ্বালিয়ে পুলিশের অনুপস্থিতিতে শিবির মিছিল ও সমাবেশ করেছে।

সকাল ৮টার দিকে ধানমন্ডি-১৯-এ পিকেটার রাজপথে টায়ার জ্বালিয়ে হরতাল সফল করতে চাইলে পুলিশ এসে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

সকাল ৯টার দিকে বনানীতে ছাত্রদলের মিছিলে পুলিশ লাঠিচার্জ ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এ সময় সেখান থেকে দুজনকে আটক করে পুলিশ।

দুপুর ২টার দিকে নয়াপল্টন বিএনপির   কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে চারটি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক এবং পল্টন থানার এসআই রহিম আহত হয়েছেন।  এ ঘটনায় কার্যালয়ের সামনে থেকে চারজনকে আটক করেছে পুলিশ।

ফারুক অভিযোগ করে বলেন, পরিকল্পিতভাবে আমাদের  নেতাকর্মীদের লক্ষ্য করেই ককটেল ফাটানো হয়েছে।

মন্তব্য করুন -


Top
error: Content is protected !!