আজ || সোমবার, ২০ মে ২০২৪
শিরোনাম :
  রবীন্দ্র সৃজনকলা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ডিজাইনকৃত পোশাক নিয়ে ফ্যাশন প্রদ‍‍র্শনী       গোপালপুরে দারোগার মাথা ফাটানোর ঘটনায় ১৬ জনকে জেলহাজতে প্রেরণ       গোপালপুরে দারোগার মাথা ফাটিয়েছে সন্ত্রাসীরা; গ্রেফতার ১০       গোপালপুরে প্রধানমন্ত্রীর ফেয়ার প্রাইজের চাল কালোবাজারে বিক্রির অভিযোগ       গোপালপুরে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মোমেনের পদত্যাগ       উত্তর টাঙ্গাইল নূরানী মাদরাসার বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান       গোপালপুরে জাতীয় দুর্যোগ প্রস্তুতি দিবস উদযাপন       গোপালপুরে নানা আয়োজনে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত       গোপালপুরে পৃথক সড়ক দূর্ঘটনায় শিশু ও নারী নিহত       গোপালপুরে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে নগদ অর্থ প্রদান    
 


‘দলীয় সরকারের অধীনে ২৫ জানুয়ারির মধ্যে নির্বাচন’

 প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দলীয় সরকারের অধীনে হলেও আগামী নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে। বারাক ওবামা ও টনি ব্লেয়ারও ক্ষমতা ছেড়ে নির্বাচন করেননি।

রোববার সংসদ ভবনে আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের সভায় তিনি আরো বলেন, বিশ্ব ব্যাংক সাড়া না দিলেও পদ্মা সেতু নির্মাণের কাজ থেমে থাকবে না।

‘আগামী ছয় মাসের মধ্যে পদ্মা সেতুর নতুন নকশা তৈরি করা হবে। ইতোমধ্যে নতুন নকশা তৈরির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে’ যোগ করেন শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ‘আবুল হোসেন দোষী হলে, আবুল হাসানও দোষী। একজনকে বাদ দিয়ে আরেকজনকে দায়ী করার সুযোগ নেই। গ্রেপ্তার করতে হলে দু’জনকেই করতে হবে।’

নির্বাচন প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দলীয় সরকারের অধীনে আগামী জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। উপজেলা নির্বাচন জাতীয় নির্বাচনের পরেই অনুষ্ঠিত হবে।

তিনি বলেন, ‘যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের কাজ অবশ্যই শেষ করা হবে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার রায় আমরা কার্যকর করেছি। এবার যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের রায়ও কার্যকর করা হবে।’

আগামী বছরের ২৫ জানুয়ারি বর্তমান সংসদের মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘এর আগেই নির্বাচন হবে। কোনো প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন আমরা করব না। দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন হলেও এই নির্বাচন অত্যন্ত অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু হবে।’

তিনি বলেন, বিশ্বের যে সকল দেশে সংসদীয় গণতন্ত্র চালু আছে, সেখানে যেভাবে নির্বাচন হয় বাংলাদেশেও তাই হবে।

এক্ষেত্রে মার্কিন প্রেসিডেডন্ট বারাক ওবামা ও সাবেক বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী টনি ব্লেয়ারের প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তারা ক্ষমতা ছেড়ে দিয়ে নির্বাচন করেননি। ওবামা জিতে গেছেন, টনি ব্লেয়ার হেরে গেছেন; এ অবস্থা তারা মেনে নিয়েছেন।

বিরোধী দলের আন্দোলন নিয়ে বৈঠকে কোনো আলোচনা না হলেও তিনি বলেন, সরকারের শেষ বছরে রাজপথে কিছু ভাঙচুর-উত্তেজনা হবেই।

নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়ে সকলকে সতর্ক করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘কে কোথায় কি করেছেন, তার সব তথ্য আমার কাছে রয়েছে। আমি ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে দেশ চালাই না।’

তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে সম্পর্ক বাড়ানোর পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, তৃণমূলের সুপারিশ ছাড়া কেউ মনোনয়ন পাবেন না।

পদ্মা সেতু প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি যা বলি তা করি। পদ্মা সেতু হবেই। ভারত, মালয়েশিয়া ও চায়নাসহ বিভিন্ন দেশের প্রস্তব রয়েছে। এই সেতু নির্মাণে তারা বাংলাদেশকে সহযোগিতা করতে চায়। কোন দেশের সহযোগিতা নেওয়া হবে তা পরবর্তীতে নির্ধারণ করা হবে।’

পদ্মা সেতুর নতুন নকশা তৈরির নির্দেশের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আগের নকশাটা ছিল অত্যন্ত ‘ইউনিক’। কিন্তু নিজেরা করতে গেলে সেটা তো বাস্তবায়ন সম্ভব হবে না।’

তিনি বলেন, নিজেরা করলে একটু সাদামাটা করতে হবে। তাই যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সেতু বিভাগ, বুয়েট ও সেনাবাহিনীর বিশেষজ্ঞদের নিয়ে তিনি বৈঠক করেছেন। তাদেরকে ইতোমধ্যে নতুন নকশা তৈরির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সভায় দলের সিনিয়র সদস্যরা বলেন, শুধু উন্নয়ন দিয়ে নির্বাচনে জয়লাভ করা যাবে না। তৃণমূল পর্যায়ে দলকে সংগঠিত করতে হবে। দলের অভ্যন্তরীণ কোন্দল নিরসন করতে হবে।

এছাড়াও ময়মনসিংহকে নতুন সিটি করপোরেশন ঘোষণা করা হবে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী। রাষ্ট্রপতির ভাষণ নিয়ে ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় সরকারের সাফল্য তুলে ধরতে দলীয় সংসদ সদস্যদের প্রস্তুতি গ্রহণেরও নির্দেশ দেন তিনি।

সংসদ ভবনের সরকার দলীয় সংসদীয় দলের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত বৈঠকে আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, আবদুল লতিফ সিদ্দিকী, অধ্যক্ষ মতিউর রহমান, মনোয়ার হোসেন চৌধুরী, আবু জাহির, তারানা হালিম, আতিউর রহমান আতিক প্রমুখ বক্তব্য রাখেন

মন্তব্য করুন -


Top
error: Content is protected !!