আজ || বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম :
  গোপালপুরে কোটা বিরোধীদের বিপক্ষে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতিবাদ       গোপালপুর প্রেসক্লাবে মেধাবী শিক্ষার্থীদের সাথে মতবিনিময়       গোপালপুরে শতাধিক নিষিদ্ধ জাল পুড়িয়ে ধ্বংস       গোপালপুরে বর্নাত্যদের জন্য ফ্রি মেডিক্যাল ক্যাম্প       গোপালপুরে বন্যায় পানীয় জলের সংকট, তবে ক্ষতিগ্রস্তরা পাচ্ছে পর্যাপ্ত ত্রাণ       গোপালপুরে ভূয়া নামজারি ও জাল খতিয়ান তৈরি চক্রের দুই সদস্য আটক       টাঙ্গাইল জেলা সমিতি ঢাকা’র নবনির্বাচিত সভাপতি ইব্রাহীম, সম্পাদক হিরণ       গোপালপুরে বৃত্তি প্রদান ও পুরস্কার বিতরণ       গোপালপুরে বৃক্ষরোপন কর্মসূচী পালন       গোপালপুরে ভূমি সেবা সপ্তাহে কুইজ প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ    
 


স্পীকারের কাছে স্মারকলিপি দেবে শিক্ষক কর্মচারী ঐক্যজোট

Teacher

চাকুরী জাতীয়করণের দাবিতে চলমান আন্দোলনের অংশ হিসেবে আগামীকাল সংসদের শীত কালীন অধিবেশনের শুরুতে সংসদের স্পিকারের কাছে স্মারক লিপি দেবে শিক্ষক কর্মচারী ঐক্যজোট। আন্দোলনের নেতা এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

শিক্ষক কর্মচারী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ সেলিম ভূঁইয়া জানান, ‘আগামীকাল সংসদ অধিবেশন। তাই আমরা জাতীয় সংসদের স্পীকারের কাছে জাতীয়করণের দাবিতে স্মারকলিপি দিতে যাবো’।

চতুর্থ দিনের মতো বেসরকারী শিকরা জাতীয়করণের দাবিতে জাতীয় প্রেসকাবের সামনে অবস্থান নিয়েছে। আগামীকালও অবস্থান করবেন।
জেলা উপজেলা শিক্ষা অফিসারদের সাবধান করে অধ্যক্ষ সেলিম ভূঁইয়া বলেন, আপনারা যদি শিক্ষকদের তালিকা তৈরি করেন তাহলে আপনাদের তালিকা তৈরি করা হবে।
শনিবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে শিক্ষকরা পূর্ব কর্মসূচী অনুযায়ী এ অবস্থান শুরু করে।
এর আগে শুক্রবার বিকেলে জাতীয়করণের এক দফা দাবিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আন্দোলনরত শিক্ষকরা রাতেও অবস্থান করবেন বলে ঘোষণা দিলেও শীতের কারণে তা স্থগিত করা হয়েছে। শুক্রবার রাত আটটা পর্যন্ত অবস্থান করে শিক্ষকরা চলে গেছেন।
শিক্ষক নেতারা জানান, হঠাৎ শৈত্যপ্রবাহের কারণে শীতের মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় খোলা রাস্তায় অবস্থান করা কঠিন হয়ে পড়েছে। তাই শিক্ষকরা আপাতত রাতে অবস্থান কর্মসূচি স্থগিত করেন।
সেলিম ভূঁইয়া আরও বলেন, শনিবারের মধ্যে দাবি মেনে নেয়া না হলে ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠেয় এসএসসি পরীক্ষায় দায়িত্ব পালন না করার ঘোষণা আসতে পারে।
জাতীয়করণের কোন ধরনের আশ্বাস সরকারের পক্ষ থেকে পেয়েছেন কি না জানতে চাইলে অধ্যক্ষ সেলিম ভূইয়া বলেন,  এখনো সরকারের পক্ষ থেকে কোন ইতিবাচক সারা পাওয়া যায়নি। শনিবারের মধ্যে কোন সিদ্ধান্ত না আসলে বড় ধরনের কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবো।
তিনি আরো বলেন, চাকরি জাতীয়করণ করা হলে শিক্ষার মান বৃদ্ধি পাবে। সব কিছু সরকার নিয়ন্ত্রণ করবে। এতে করে শিক্ষকদের জবাবদিহিতা নিশ্চিত হবে।
আলোচনার বিষয়ে জানতে চাইলে সেলিম ভূঁইয়া বলেন, যদি সরকারের পক্ষ থেকে আলোচনার কথা বলে, তাহলে আমরা আলোচনায় বসতে রাজি। সে ক্ষেত্রে আন্দোলন প্রত্যাহার করবেন কি না? এ বিষয়ে তিনি বলেন, আলোচনাও চলবে আন্দোলনও চলবে। নির্দিষ্ট আশ্বাসের ভিত্তিতে আন্দোলন প্রত্যাহার না স্থগিত সেই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

মন্তব্য করুন -


Top
error: Content is protected !!