আজ || বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম :
  হেমনগর জমিদারের একাল-সেকাল’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন       গোপালপুরে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা পদক প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ       গোপালপুরে পটগান ও নাটক প্রদর্শনী       গোপালপুর হাসপাতালে মুক্তিযোদ্ধারা বিনামূল্যের চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত       গোপালপুরে সাংবাদিকদের সাথে ওসির মতবিনিময়       গোপালপুরের লক্ষীপুর চাকুরীজীবী পরিষদ কর্তৃক শীতবস্ত্র বিতরণ       গোপালপুরে শিশু শিক্ষার্থীদের মাঝে সুয়েটার উপহার       গোপালপুরে স্বামীর হাতে দুই সন্তানের জননী খুন       গোপালপুরে দুই বিঘা জমির কাঁচা সরিষা ট্রাক্টর দিয়ে মাড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ       গোপালপুরে গুদামের শার্টার ভেঙ্গে সার চুরি, ১০ বস্তা ইউরিয়া সারসহ আটক ১    
 


জিয়াউর রহমানের ৭৭তম জন্মবার্ষিকী আজ

130119-ziaur rahman

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৭৭তম জন্মবার্ষিকী আজ। ১৯৩৬ সালের ১৯ জানুয়ারি তিনি বগুড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তার ডাকনাম কমল। জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বিএনপি ও এর অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনগুলো

ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। এ উপলক্ষে দলের সমন্বয়ক ও স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম বাণী দিয়েছেন। স্বাধীনতার ঘোষক, মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডার ও জেড ফোর্সের প্রধান হিসেবে জিয়াউর রহমান এদেশের

মানুষের কাছে প্রথম পরিচিত হলেও পরে তিনি বাংলাদেশের একজন বরেণ্য রাষ্ট্রনায়কে পরিণত হন। যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশকে রাজনৈতিক ঐকতানে নিয়ে আসা ও সুদৃঢ় অর্থনৈতিক ভিত্তির ওপর দাঁড় করানোর কারণে তিনি আধুনিক বাংলাদেশের স্থপতি হিসেবে আখ্যা পান। তিনি বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের আদর্শের ভিত্তিতে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) গঠনের মধ্য দিয়ে দেশে উন্নয়ন ও উৎপাদনের রাজনীতির সূচনা করেন। বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের নতুন দর্শন উপস্থাপন করেন জিয়াউর রহমান। তিনি ১৯-দফা কর্মসূচি দিয়ে দেশে উন্নয়ন ও উত্পাদনের রাজনীতি এগিয়ে নিয়ে যান। তার প্রতিষ্ঠিত বিএনপি দেশের মানুষের প্রিয় দল হিসেবে ’৭৯ সালের দ্বিতীয় সংসদ, ১৯৯১ সালের পঞ্চম সংসদ ও ষষ্ঠ এবং অষ্টম সংসদ নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠ আসনে বিজয়ী হয়ে সরকার গঠন করে। স্বৈরশাসক এরশাদের অধীনে অনুষ্ঠিত ১৯৮৬ সালের তৃতীয় ও ১৯৮৮ সালের চতুর্থ সংসদ নির্বাচন বিএনপি বর্জন করে।

১৯৮১ সালে এক সামরিক অভ্যুত্থানে রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে মর্মান্তিকভাবে শাহাদাত বরণ করেন।

জিয়াউর রহমান একজন সাহসী মুক্তিযোদ্ধা, অন্যতম সেক্টর কমান্ডার। তার দরাজ কণ্ঠেই স্বাধীনতার ঘোষণা শুনে এদেশের মুক্তিকামী মানুষ হানাদার পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল। মুক্তিযুদ্ধে সাহসী অবদানের জন্য স্বাধীনতার পর তৎকালীন সরকার তাকে বীরউত্তম খেতাবে ভূষিত করে।

শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে কেন্দ্রীয়ভাবে দু’দিনের কর্মসূচি নিয়েছে বিএনপি। আজ ভোরে সারাদেশে দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল ১০টায় শেরেবাংলা নগরে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মাজারে ফাতেহা পাঠ ও পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া দলের পক্ষ থেকে শহীদ জিয়ার মাজারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। এরপর তিনি ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের (ড্যাব) উদ্যোগে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি উদ্বোধন করবেন।

ড্যাবের উদ্যোগে নয়াপল্টনে সকাল ৯টায় মেডিকেল ক্যাম্প হবে। এটি উদ্বোধন করবেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম। রবিবার বিকাল ৩টায় ঢাকা মহানগর নাট্যমঞ্চ মিলনায়তনে আলোচনা সভা হবে। বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত এ আলোচনা সভায় দলের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া উপস্থিত থাকবেন। এছাড়া দলের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন শোভাযাত্রা, আলোকচিত্র প্রদর্শন, আলোচনা সভা, পোস্টার, লিফলেট ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করবে।

মন্তব্য করুন -


Top
error: Content is protected !!